মিষ্টি

এক নজরে জেনে নিন কিভাবে তৈরি করবেন মজাদার পায়েস

আমাদের আজকের রেসিপি হলো মজাদার পায়েস রেসিপি। আজকে দেখাবো কিভাবে তৈরি করবেন মজাদার পায়েস।  আমাদের অথবা আমাদের চার পাশে যেকোনো অনুষ্ঠানে আমরা পায়েসের ব্যবস্থা করে থাকতে দেখি। যেকোনো ধরনের শুভ কাজে আমরা পায়েস খেয়ে মিষ্টিমুখ করি। ছোট বড় সকলেই আমরা পায়েস খুব ভালোবাসি। অন্য যেকোনো ধরনের মিষ্টির পরিবর্তে আমারা পায়েসকেই বেশি প্রাধান্য দেয়। চলুন তাহলে দেখে নেই আমরা কম খরচে সামান্য উপকরণ দিয়ে মজাদার পায়েস কিভাবে তৈরি করবেন ।

কিভাবে তৈরি করবেন পায়েস

আমি উপকরণগুলো একটা লিস্ট দিয়ে দিলাম আপনি আপনার প্রয়োজন মতো নিয়ে নিবেন।

প্রয়োজনীয় উপকরণঃ

১. গোবিন্দভোগ চাল।
২. দুধ
৩. চিনি
৪. এলাচ
৫. তেজপাতা
৬. কেশর
৭. ঘি
৮. এবং কিচমিচ

মজাদার পায়েস

কার্যপ্রনালিঃ

  • আমরা চালটাকে ভালোভাবে ধৌয়ে নিব। একটা বড় পাত্রে লিকুইড দুধটা ঢেলে গরম করে নিব।
  • কিছুক্ষন পরে দুধের মধ্যে তেজপাতা এবং এলাচ দিয়ে দিবো।
  • দুধ যখন ঘন হয়ে আসবে তখন চালের মধ্যে ঘি মাখিয়ে দুধের মধ্যে দিয়া দিবো।
  • চাল সিদ্ধ হলে এতে প্রয়োজন মতো কেশর দিয়ে নাড়াচাড়া করতে যেনো পাত্রের সাথে লেগে না যায়।
  • কিছুক্ষণ পরে দেখতে পাবো দুধটা আরো ঘন হয়ে ক্ষীর হয়ে আসবে। তখন পায়েস নামিয়ে নিব এবং বাটিতে ঢেলে এর উপরে সামান্য পরিমাণ ছিটিয়ে দিব।
  • এখন পরিবেশন করবো।

  আরও পড়ুনঃ ওজন কমানোর সহজ উপায়

লাউ দুধের পায়েস

প্রায় প্রতি বছরই শীতে মায়ের হাতের রান্না করা লাউ দুধের পায়েস। এই পায়েস খেতে কি যে মজা আহ কি যে আনন্দ। এখনো লাউ দুধের পায়েসের কথা মনে হলে মুখে পানি চলে আসে। লাউ দুধের পায়েস ছাড়া কি শীতকাল কাটে। মিস্টি মিস্টি রৌদে বসে ল দুধের পায়েস খাওয়ার মজাই আলাদা। কী ভাবছেন এত মজাদার পায়েস কিভাবে তৈরী করা যায়। নো সমস্যা এখনই খাতায় এই রেসিপিটি লিখে ফেলেন।

প্রয়োজনীয় উপকরণ

  • তরল দুধ- ২.৫কেজি
  • কচি লাউ- ১.৫ বা ১টি
  • এলাচ- ৩টি
  • কিসমিস- ১২ টি
  • দারচিনি- বড় ১টি
  • লবণ- পরিমাণমতো
  • চিনি- পরিমাণমতো

কার্যপ্রণালী

  • একটা লাউ কেটে মাঝখানের বিচিসহ কিছু অংশ বাদ দিয়ে বাকি অংশ মিহি করে কেটে নিন।
  • লাউগুলো কিছু সময় গরম পানিতে ভিজিয়ে রাখুন।
  • একটি বড় পাতলে দুধের সাথে দারচিনি, এলাচ, প্রয়োজন মতো চিনি এবং লবন দিয়ে দুধ ঘন করতে হবে।
  • আবার দুধে গরম পানিতে রাখা লাউ এবং কিসমিস দিয়ে কিছু সময় নাড়তে থাকুন।
  • দুধের মিশ্রণটি ঘন পায়েসের মতো হলে এটি চুলা থেকে উঠিয়ে নেন। এখন আপনার প্রয়োজন মতো আরও কিসমিস, বাদাম, দিয়ে পরিবেশন করতে পারেন।

বাহ্ এখন একটু খেয়েই দেখেন কত মজাদার এই খাবারটি। এত অল্প সময়েই আপনি খুব মজাদান একটি রেসিপি শিখব গেলেন।

জন্মদিনের পায়েস রান্নার রেসিপি

বার্থডে পার্টি বা জন্ম দিনে পায়েস না হলে কি চলে। এই সুন্দর দিনে চাই মজাদার পায়েস। আজকে আমরা এখানে জন্য কিভাবে জন্মদিনের জন্য স্পেশাল মজাদার পায়েস রান্না করা যায়।

উপকরণ

  • চিনি ১.৫ কেজি
  • দুধ ৯০০ গ্ৰাম
  • গোবিন্দ ভোগ চাল ২০০ গ্ৰাম
  • কিশমিশ ১৬ টি
  • এলাচ ৩ টি
  • বাতাসা ৭০ গ্ৰাম
  • ঘৃ ৫ টেবিল চামচ
  • কাজুবাদাম ১২ টি
  • তেজপাতা ৩ টি
  • লবন প্রয়োজন মতো

প্রস্তুত প্রণালী

  • চাল দুয়ে ঘি এর সাথে মাখিয়ে রাখুন। কাজু বাদাম, কিশমিশ ভিজিয়ে রাখুন এবং একটি নিদিষ্ট পাত্রে দুধ ঢেলে রাখুন।
  • এখন দুধটা সামান্য ঘন করে এতে ঘি মাখানো চাল ও তেজপাতা দেন এবং কিছুক্ষন নাড়াচাড়া করুন। যাতে লেগে না যায়।
  • আবার চাল সিদ্ধ হলে এতে পরিমান মতো লবন, কিসমিস, বাদাম, বাতাসা এবং এলাচ দিয়ে দেন।
  • কিছু পরিমান দুধ থাকা অবস্থায় পাতিল চুলা থেকে নামিয়ে নিন। এবং কিছু সময় চাপা দিয়ে রেখে পরিবেশন করুন।

আমাদের শেষ কথা

পায়েস একটি জনপ্রিয় খাবার। এটা প্রায় সবাই খেতে পছন্দ করে। আর তাই আপনি নিজে আপনার বাসায় বসে কম পরিশ্রমে কম সময়ে এই মজাদার পায়েসটি তৈরি করে নিন। আমাদের দেওয়া রেসিপি ৩ টি যদি আপনার ভালো লাগে তাহলে কমেন্ট করে জানাবেন। আজ এই পর্যন্তই ধন্যবাদ ভালো থাকবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button